বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
এক সপ্তাহে অর্থনীতির ক্ষতি ৮৪ হাজার কোটি টাকা কারফিউ বাড়ল আরও ২ দিন, আজ খুলছে সরকারি অফিস সরকারি চাকরিতে মেধার ভিত্তিতে ৯৩ শতাংশ নিয়োগ হবে: আপিল বিভাগ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা কোটা আন্দোলনকারীদের বিক্ষোভকারীদের হামলায় সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আহত, পিএস নিহত সারা দেশে কারফিউ জারি কুলাউড়াসহ তিন উপজেলার দীর্ঘস্থায়ী বন্যা ও জলাবদ্ধতা নিরসনে মতবিনিময় সভা কুলাউড়ায় বন্যার্তদের মধ্যে প্রবাসী পরিষদ রিয়াদের আর্থিক অনুদান প্রদান কুলাউড়ার গরিবের ডাক্তার খ্যাত বীর মুক্তিযোদ্ধা হাফিজুর রহমান চৌধুরীর ইন্তেকাল কুলাউড়ায় বিদ্যুৎ বিভাগের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী

ইফতারকে বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি দিল ইউনেস্কো

ফারজানা আহমেদ
  • আপডেট : শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২৩

পবিত্র রমজান মাসের ইফতারকে বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি দিল জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো। করাচিভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ডনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়। ইফতারকে ‘ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ’ তালিকায় যুক্ত করেছে ইউনেস্কো।

মুসলমানদের কাছে পরিত্র রজমান মাস অনেক ফজিলতের। এই মাসে সারাদিন পানাহার থেকে বিরত থেকে রোজা পালন করেন মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা। এরপর সন্ধ্যায় মাগরিবের আজানের সময় পানি পান ও ফলমূল খেয়ে পূর্ণ করা হয় রোজা। এই পানাহারকে বলা হয়ে থাকে ‘ইফতার’।

ইফতারকে সামাজিক–সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিতে যৌথভাবে আবেদন করেছিল ইরান, তুরস্ক, আজারবাইজান ও উজবেকিস্তান। ইউনেস্কো বলছে, ‘ইফতার (ইফতারি বা ইফতর হিসেবেও পরিচিত) রমজান মাসে প্রতিদিন সূর্যাস্তের পর মুসলমানরা ইফতার করেন। ধর্মীয় রীতি হিসেবেই এই ইফতার।’

রমজান মাসের ইফতারের সময় পরিবারের কিংবা এলাকার সবাই একসাথে হন। এরপর একত্রে মাগরিবের আজানের জন্য অপেক্ষা করেন। আজান দেওয়া শুরু হলে পানাহার করেন তারা। এর আগে ভোরে পানাহার করে শুরু হয় রোজা, একে বলা হয় সেহরি।

ইফতারের সময় বেশির ভাগ দেশেই খেঁজুর খাওয়া হয়। এ ছাড়া শরবতসহ আরও অন্যান্য খাবারও থাকে তালিকায়। দেশভেদে এসব খাবারের মধ্যে বৈচিত্রতা দেখা যায়।

শেয়ার করুন

আরও পড়ুন
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০ | কেবিসি নিউজ ফ্রান্স
Theme Developed BY NewsFresh